চরফ্যাসনে সীমানা বিরোধকে কেন্দ্র করে বসত ঘরে হামলা, ভাংচুর, লুটপাট; আহত- ৫

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত মে ২৭ বৃহস্পতিবার, ২০২১, ০১:৩২ অপরাহ্ণ
চরফ্যাসনে সীমানা বিরোধকে কেন্দ্র করে বসত ঘরে হামলা, ভাংচুর, লুটপাট;  আহত- ৫

চরফ্যাসন (ভোলা) প্রতিনিধিঃ চরফ্যাশনে  বাড়ির সীমানা বিরোধ কে কেন্দ্র করে বসত ঘরে প্রতিপক্ষের হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট, নারী-পুরুষ ও একই পরিবারের ৫ জন আহত হয়েছে।

 

আহতদের মধ্যে গুরুতর আহত ১জনকে চরফ্যাসন হাসপাতালে ভর্তি করলেও বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে ঢ়দেয়া হয়েছে। আহতরা হলেন, নয়ন (২৫),মা রোকেয়া(৪০), ভাই তারেক (১৮),বোন মহিমা(১৫)। তবে নয়নের অবস্থা আশঙ্কাজনক বিধায় ১ দিন পর কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভোলা জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

 

গত ২৪ মে সোমবার বেলা ১১ টায় ওসমানগঞ্জ ৫নং ওয়ার্ড উত্তর ফ্যাসন গ্রামে তাদের নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত নয়নের মা রোকেয়া বাদি হয়ে মান্নান সহ ৪ জনকে বিবাদি করে অভিযোগ দাখিল করেন। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

স্থানীয় ও আহতদের সূত্রে জানা যায়, ওসমানগন্জ ৫ নং ওয়ার্ড বাসিন্দা রতন মিয়ার ২ ছেলে, মান্নান ও কবির দির্ঘদিন একই বাড়িতে বসবাস করে। সম্প্রতি কবির তার পুরাতন ঘরটি মেরামত কাজ করছিল। এমতাবস্তায়  বাড়ির সীমানাকে কেন্দ্র করে ঘটনার দিন মান্নান ও তার স্ত্রী ফরিদা, মেয়ে সোহাগি  সহ ৪/৫ জন দলবদ্ধভাবে কবিরের ঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে।
কবিরের ছেলে নয়ন বাধা দিলে তাকে দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মাথায় গুরুতর জখম করে। তার চিৎকারে মা রোকেয়া, ভাই তারেক, বোন মহিমা ছুটে আসলে তাদেরকেও হামলাকারিরা লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। যাওয়ার সময় কবিরের ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে স্বর্নালংকার ও নগদ অর্থ লুটে নেয়। স্বজনরা গুরত্বর আহতবস্থায় নয়নকে উদ্ধার করে চরফ্যাসন হাসপাতালে ভর্তি করে। তার অবস্থার অবনতি দেখে ১ দিন পর কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভোলা জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করে।
এ ঘটনার সত্যতা জানতে এলাকায় গিয়ে প্রতিপক্ষের মান্নান গংদের খুঁজে পাওয়া যায়নি।
চরফ্যাসন থানা অফিসার ইনচার্জ মনির হোসেন মিয়া ও এসআই নুরুজ্জামান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে ।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]