ঝালকাঠিতে জেলা পরিষদ সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীর দোকানঘর দখলের অভিযোগ

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত জুন ১৩ রবিবার, ২০২১, ০২:৪০ অপরাহ্ণ
ঝালকাঠিতে জেলা পরিষদ সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীর দোকানঘর দখলের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক ।। ঝালকাঠি জেলা পরিষদের সদস্য নাছিমা আক্তার রুনুর বিরুদ্ধে এক ব্যবসায়ীর দোকানঘর দখলের অভিযোগ উঠেছে।

 

এ ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন করে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন জেলার নলছিটি উপজেলার কুশঙ্গল ইউনিয়নের সেওতা গ্রামের বাসিন্দা মো. আক্তারুজ্জামান।

 

 

রোববার (১৩ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলার ফেরিঘাট এলাকায় তার ভাইয়ের বাসায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, উপজেলার কুশঙ্গল ইউনিয়নের মানপাশা বাজারে তাদের নিজস্ব একটি দোকানঘর আছে, যা ২৫ বছর যাবৎ তারাই ভােগদখল করছিল। দোকানের পজিশন, ডিসিআরসহ বাজার কমিটির সভাপতির স্বাক্ষরকৃত যাবতীয় কাগজপত্র তাদের নামে।

 

 

তারা দোকানঘরের ট্যাক্স নিয়মিত পরিশােধ করেছেন। দোকানে অনুমানিক ৩ লক্ষ টাকার মালামাল ও আসবাবপত্র রয়েছে। এই দোকানঘরটি স্থানীয় প্রভাবশালী ঝালকাঠি জেলা পরিষদের সদস্য নাছিমা আক্তার ও তার ছেলেমেয়েরা সন্ত্রাসী নিয়ে জবরদখলের চেষ্টা করছে। গত রমজান মাসে দোকান চলাকালে তারা দোকানে এসে তান্ডব চালায়।ওই সময় তিনি বাজার কমিটিসহ স্থানীয় চেয়ারম্যানকে বিষয়টি জানান। জেলা পরিষদের সদস্য নাছিমা আক্তার রুনু দোকানে জোরপূর্বক একটি তালা লাগিয়ে দোকান বন্ধ করে দেয়। দোকানের মধ্যে আটকে পড়া মালামাল বিক্রি করতে না পারায় তিনি আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

 

 

তিনি জানান, বিরােধীয় বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সালিস বৈঠকের মাধ্যমে সুরাহার চেষ্টা করেন। কিন্তু নাছিমা আক্তার রুনু কাউকে তােয়াক্কা না করে জোরজবরদস্তির মাধ্যমে দোকানঘরটি দখলের চেষ্টা চলাচ্ছেন।

 

 

সংবাদ সম্মেলনে আক্তারুজ্জামান অভিযোগ করে বলেন, দোকানের মালমাল থাকা সত্বেও নাছিমা আক্তার রুনু ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে দোকানে তালা মেরে রেখেছেন। সে নকল কাগজপত্র তৈরি করে নিজেকে দোকানের মালিক দাবি করতেছেন। দোকান না দিলে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছেন তিনি। তার ক্ষমতা দাপটে এলাকাবাসী জিম্মি হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় নলছিটি থানায় একটি অভিযােগ দেওয়া হয়েছে।

 

 

সংবাদ সম্মেলনে ব্যবসায়ী মো. আক্তারুজ্জামানের দুই ভাই ও আত্মীয়-স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]